পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ও সুবিধা এবং আবেদন পদ্ধতি, wb govt 32 all scheme helpful

WhatsApp Group (Join Now) Join Now
Telegram Group (Join Now) Join Now

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ও সুবিধা এবং আবেদন পদ্ধতি, wb govt all scheme benefit and important information with application process in bengali. পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অধীনে সাম্প্রতিক গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলোর বিস্তারিত নিম্নরূপ

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প

  1. ঐক্যশ্রী।

এটি একটি নতুন প্রকল্প যাহা পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু শ্রেণীর ছাত্রদের বৃত্তি প্রদান করে। এই প্রকল্পের অধীনে D3 টাইপের বৃত্তি প্রদান করা হয় । দেখুন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প।

চাকরির খবর দেখুন মাধ্যমিক পাশে আবেদন চলছে

● প্রি-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ

  1. কৃষক বন্ধু
WhatsApp Group (Join Now) Join Now
Telegram Group (Join Now) Join Now

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প এর মধ্যে এটা এক প্রকল্প যেটা ২ কিস্তিতে (একটি খারিফ শস্য ফলনের ও অপটি রবি শস্য ফলনের সময়) কৃষকদের একর প্রতি ৫০০০ টাকা বার্ষিক ভিত্তিতে অনুদান দেবে। প্রকল্পটি উপার্জনকারী কৃষক পরিবারের সদস্যদের জন্য কোন প্রিমিয়াম ছাড়াই মৃত্যুজনিত ২ লক্ষ টাকার জীবন বিমা অন্তর্ভুক্ত আছে যাদের বয়স ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।

  1. স্বাস্থ্যসাথী

• স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের অধীনে এই প্রকল্প। আধুনিক স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রতিটি প্রান্তের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া ও স্বচ্ছতার পাশাপাশি অত্যাধুনিক ই-প্রযুক্তি ব্যবহার করা এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য। দেখতে থাকুন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প গুলি।

● স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দেওয়া হয় (স্মার্ট কার্ডের মতো)। ● কার্ডধারীর পরিবাররা বছরে 1.5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা পাবেন ক্যাশলেস হিসাবে। 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিশেষ জটিল রোগের ক্ষেত্রে চিকিৎসা পাবেন।

• সিভিক ভলান্টিয়ার্স, গ্রিন ভলান্টিয়ার্স, ভিলেজ ভলান্টিয়ার্স, সিভিল ডিফেন্স ভলান্টিয়ার্স, বিপর্যয় মোকাবিলাকারী কর্মী, হোমগার্ড, পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের স্বনির্ভর গোষ্ঠী, আশা কর্মী ইত্যাদিরা আবেদন করতে পারেন।

WhatsApp Group (Join Now) Join Now
Telegram Group (Join Now) Join Now

• স্বামী, স্ত্রী, তাদের উপর নির্ভরশীল পিতামাতা ও শ্বশুর-শাশুড়ি এবং 18 বছর বয়স পর্যন্ত ছেলেমেয়েরা প্রত্যেকে এই স্বাস্থ্য বীমার সুবিধা পেতে পারেন।

4.পোস্ট-ম্যাট্রিক স্কলারশিপ

5.মেরিট-কাম-মিনস্ স্কলারশিপ

  1. জাগো

এই সাম্প্রতিক চালু হওয়া প্রকল্প যাহা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বনির্ভর ও স্ব-নিযুক্তি ডিপার্টমেন্ট এর অধীনস্থ প্রায় ১০ লক্ষ স্বনির্ভর গোষ্ঠীকে বার্ষিক ৫০০০ টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করা হবে।

  1. কন্যাশ্রী।

● এই প্রকল্পটি শিশু ও নারী উন্নয়ন এবং সমাজকল্যাণ দপ্তরের আওতায় পড়ে।

• এই প্রকল্পটি আর্থিক উৎসাহদানের প্রকল্প। এর সূচনা মূলত বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করার জন্য শুরু হয়। দরিদ্র মেয়েদের পড়াশুনা ও উচ্চশিক্ষা করানো এহার অন্যতম উদ্দেশ্য। অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির অবিবাহিতা ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা করা হয়।

● এই প্রকল্পের দু’ ধরনের আর্থিক সাহায্য পাওয়া যায়। (i) বার্ষিক 750 টাকা বৃত্তি (ii) 25,000 টাকার এক কালীন অনুদান। • এই প্রকল্প চালু হয় 2013 সালের 1লা অক্টোবর থেকে। আরও দেখুন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প।

• 19.05.2017 পর্যন্ত 40 লক্ষ ছাত্রী এই রাজ্যে কন্যাশ্রীর আওতায় এসেছে।

• সম্প্রতি রাষ্ট্রপুঞ্জে কন্যাশ্রী প্রকল্পকে বিশ্বসেরা প্রকল্পের শিরোপা দিয়েছে। বিশ্বের 552টি প্রকল্পের মধ্যে শ্রেষ্ঠ প্রকল্প 23 জুন, ২০১৭ তারিখে রাষ্ট্রপুঞ্জের জন পরিষেবা দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে নেদারল্যাণ্ডস্-এর দ্য হেগ শহরে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর হাতে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

• আবেদনকারীদের পারিবারিক বার্ষিক আয় 1 লক্ষ 20 হাজার টাকার মধ্যে থাকতে হবে এবং রাষ্ট্রীয় ব্যাঙ্কে এই প্রকল্পের জন্য একটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

  1. খাদ্য সাথী

● এই প্রকল্পটি খাদ্য সরবরাহ দপ্তরের আওতায় পরে।

• নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবারের যোগান নিশ্চিত করতে সুলভ মূল্যে খাদ্য এবং পুষ্টির নিরাপত্তা দেওয়াই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

• এই প্রকল্পে মানুষরা খাদ্য খুব কম মূল্যে পায়। যেমন 2 টাকা কেজি চাল।

  1. গতিধারা

• পরিবহন দপ্তরের অধীনে এই প্রকল্প।

• এই প্রকল্প চালু করার উদ্দেশ্য কর্মহীন যুবক যুবতীদের স্বনির্ভর করে তোলা।

• কর্মহীন ও এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কে নথিভুক্ত যুবক-যুবতীদের নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্য এই প্রকল্প শুরু করেছে রাজ্য সরকার।

• সেপ্টেম্বর, 2015 থেকে এই প্রকল্প শ্রম দপ্তর থেকে পরিবহন দপ্তরের আওতায় আসে।

যে কোন বাণিজ্যিক গাড়ী কিনলেই রাজ্য সরকারের গাড়ির মোট দামের 30 শতাংশ বা সর্বোচ্চ। লক্ষ টাকা পর্যন্ত অনুদান বা ভর্তুকি হিসেবে দেবে এবং এই অর্থ ফেরত দিতে হবে না।

বছরের ১লা এপ্রিলের হিসাবে যুবক/যুবতী বয়স 20 বছরের বেশি কিন্তু 45 বছরের কম হতে হবে। তপশিলি জাতি ও উপজতি এবং ওবিসি’র ক্ষেত্রে বয়সের উর্ধ্বসীমায় যথাক্রমে 5 বছর ও 3 বছরের ছাড় থাকবে। এই যুবক/যুবতীকে কর্মহীন অবস্থায় এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কে নথিভুক্ত হতে হবে এবং নাসিক আয় 25 হাজার টাকার বেশি হবে না।

  1. সবুজ সাথী

● প্রকল্পটি অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ দপ্তরের আওতায় পড়ে। ছাত্রছাত্রীদের সাইকেল বিতরণের একটি প্রকল্প “সবুজ সাথী”। এই প্রকল্পে 70 লক্ষ ছাত্রছাত্রীকে সাইকেল দেওয়া হয়েছে। • রাজ্যের সরকারি, সরকারি সাহাজ্যপ্রাপ্ত বিদ্যালয়ে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রী এই প্রকল্পের আওতায় পড়ে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প গুলি সবার সাথে সেয়ার করুন।

  1. সবুজশ্রী

• এটি বন দপ্তরের আওতায় একটি বহুমুখী পরিকল্পনা।

● এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিটি শিশুর জন্মগ্রহণের পরেই অভিভাবককে একটি মূল্যবান চারা দেওয়া হয়।

• বৃক্ষটি বেড়ে উঠলে তাকে আর্থিক কারণে ব্যবহার করা যাবে। ● এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হল ‘সবুজ বাংলা’ গড়ে তোলা।

  1. জল ধরো জল ভরো

• এই প্রকল্পটি জল সম্পদ অনুসন্ধান ও উন্নতি দপ্তরের (Water Resources Investigation and Development) আওতায় পড়ে।

• বৃষ্টির জল সংরক্ষণ ও কার্যকরীভাবে জলের ব্যবহার সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানোই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য।

• ঐ জলকে যেথোপোযুক্ত ভাবে অনেক বড় এলাকায় কৃষিকাজের জন্য ব্যবহার করা হয়।

  1. জলতীৰ্থ

• জলসম্পদ অনুসন্ধান এবং উন্নতি দপ্তরের আওতায় ইহা একটি বিশেষ প্রকল্প।

• এই প্রকল্পের আওতায় অনুব্বর জমিতে যেমন বীরভূম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর প্রভৃতি জেলার নদীগুলিতে বাঁধ তৈরী করে, খাল, জলসেচের ট্যাঙ্ক প্রভৃতির মাধ্যমে জল সেচ করে কৃষিকাজের এলাকার সম্প্রসারণ করা হয়।

  1. আমার ফসল আমার গোলা।

এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষি বিপণন দপ্তরের আওতায় পড়ে।

এই কাজের জন্য রাজ্য সরকার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের কিছু ভর্তুকি প্রদান করবে।

  1. আমার ফসল আমার গাড়ি • এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষি বিপণন দপ্তরের আওতায় পড়ে।

এই প্রকল্পটির উদ্দেশ্য হল কৃষি গোলা থেকে বাজারে কৃষিজাত পণ্য পরিবহনের সংযোগকারী রাস্তার মানোন্নয়ন করা। গ্রামাঞ্চলে গরুর গাড়ি ব্যবহারকারীদের ভর্তুকি প্রদান করা। নিচে দেখুন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প আরও অনেক।

  1. শিশু সাথী

● এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের আওতায় আছে।

● 2013 সালের আগস্ট মাসে মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের এই প্রকল্প চালু হয়।

• জন্মের পর শিশুদের হার্টের কোনরকম সমস্যা থাকলে কলকাতার ২টি সরকারী হাসপাতাল (কলকাতার PG হাসপাতাল ও কলকাতার মেডিক্যাল কলেজ) ও 6টি বেসরকারী হাসপাতালের যে কোনওটিতে জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক (CMOH) এবং ব্লকস্তরের স্বাস্থ্য আধিকারিক (BMOH) এদের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে হবে।

১৮ বছর বয়স পর্যন্ত রাজ্যের APL এবং BPL উভয় পরিবারের শিশুদের সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই পরিষেবা পাওয়া যাবে।

16.উৎকর্ষ বাংলা

• এই প্রকল্পটির উদ্দেশ্য হল স্কুল-ছুট ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দেওয়া। এই প্রকল্পে 400 থেকে 1200 ঘণ্টার বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

● এই প্রকল্পের আওতায় উপভোক্তা প্রশিক্ষণ পাবেন – গাড়ি 20. শিক্ষাশ্রী চালানো, দর্জির কাজ, টিভি ও অন্যান্য বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি সারানো, প্রসাধনীয় কাজ প্রভৃতি ক্ষেত্রে।

  1. লোক প্রসার প্রকল্প

ইহা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একটি অনন্য প্রকল্প। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হল – পুনরুজ্জীবন মাসে দেওয়া। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন লোক সংস্কৃতিকে ও পেনসন হিসাবে ১ হাজার টাকা করে প্রতি

● এটা ছাড়াও প্রতিটি প্রোগ্রামে তাদের পারফর্মেন্স মূল্য হিসাবে ১ হাজার টাকা সরাসরি এই লোক সংস্কৃতির শিল্পীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরিত হয়।

  1. সম্পর্ক এবং সুকন্যা

• এই প্রকল্পগুলি পুলিশ ও মানুষের মধ্যে সংবেদনশীল সম্প্রীতি অর্জন করার জন্য চালু হয়েছে।

● দরিদ্রসীমার নীচে বসবাসকারী যুবকদের এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে এবং বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের আত্মরক্ষার জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

19.দুর্দান্ত

• ইহা একটি Unmanned Aerial Vehicle (UAV).

• ইহাকে কলকাতা পুলিশের আইনাধিকারের মধ্যে জনসমাগম নিয়ন্ত্রণ, নজরদারি এবং দমকলকর্মীদের সাহায্যার্থে মোতায়ন করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ।

20.মধুর স্নেহ

• ২০১৩ সালে কলকাতার SSKM হাসপাতালে দগ্ধ ব্যাঙ্ক। গঠন করা হয়েছে। মধুর স্নেহ’ প্রকল্পের আওতায় দুগ্ধ ব্যাঙ্কের প্রাপকরা হল সেই

সব শিশু যারা নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই জন্মগ্রহণ করেছে. জন্মের পর ওজন কম আছে এবং যাদের মায়েরা সরাসরি তার বাচ্চাদের দুধ খাওয়াতে পারেন না।

21 শিক্ষাশ্রী

• অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ দপ্তর এবং আদিবাসী উন্নয়ন দপ্তরের আওতায় এই প্রকল্প চালু হয়েছে।

এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হল পিছিয়ে থাকা পরিবারের পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছেলেমেয়েদের পড়ানোর জন্য বার্ষিক বৃত্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তফসিলি জাতির ক্ষেত্রে পঞ্চম থেকে সপ্তম শ্রেণী জন্য বার্ষিক ৭৫০ টাকা হারে ও অষ্টম শ্রেণির জন্য বার্ষিক ৮০০ টাকা হারে এবং তপশিলি অদিবাসীর ক্ষেত্রে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির জন্য বার্ষিক ৮০০ টাকা হারে বৃত্তি দেওয়া হয়।

● পরিবারের আয় বার্ষিক ২.৫ লক্ষ টাকা বা তার কম হতে হবে। ছেলে বা মেয়েকে তপশিলি জাতি বা তফশিলি অধিবাসী হতে হবে এবং কোনও সরকার স্বীকৃত স্কুলে পড়াশোনা করতে হবে।

22 . মুক্তির আলো

● ইহা একটি সর্বাঙ্গীণ প্রকল্প যার মাধ্যমে যৌনকর্মীদের পুনর্বাসন করা হয়।

• মহিলা এবং তাদের কন্যাসন্তানদের নতুন করে আত্মসম্মানের সঙ্গে জীবনে বাঁচার সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়।

  1. লিটিল স্টার

• ইহা শ্রবণশক্তির সমস্যায় যে সকল ব্যক্তিরা ভুগছেন তাদের জন্য প্রোগ্রাম।

  1. নিজ গৃহ নিজ ভূমি

• এই প্রকল্পের আওতার প্রতিটি যোগ্য পরিবারগুলিকে চিহ্নিত করে তাদের 5 ডেসিমাল পর্যন্ত জমি দেওয়া হয়। অর্থাৎ ভূমিহীন ভাগচাষীরা, গ্রামের কারিগররা এবং গ্রাম্য এলাকার মাছচাষীরা এই প্রকল্পের আওতায় পড়েন।

  1. প্রাণ ধারা

• এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জন স্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের আওতায় পড়ে।

● ইহা একটি প্যাকেজ পানীয় জল প্রকল্প, যেখানে উৎকৃষ্ট মানের প্যাকেজড্ পানীয় জল জনগণের জন্য অত্যন্ত কম দামে দেওয়া হয়।

  1. সমব্যাথি

• যদি একজন লোক মারা যায়, তখন সেই ব্যক্তির মৃতদেহ সৎকার করার জন্য মৃত ব্যক্তির পরিবারকে 2000 টাকা করে দেওয়া হয়।

  1. রূপশ্রী

• এই প্রকল্পটি ২০১৮ সালে চালু হয়েছে। এর আওতায়, ১৮ বছরের উপরের মেয়েদের এককালীন ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হয় বিবাহের জন্য।

● এই প্রকল্পের আওতার পরিবারগুলির বার্ষিক আয় ১.৫ লক্ষ টাকার নীচে হতে হবে।

  1. মানবিক পেনশন প্রকল্প

● ইহা ২০১৮ সালে শুরু করা হয়েছে। প্রতিবন্ধি পেনশন হিসাবে ১ হাজার টাকা প্রতি মাসে প্রতিবন্ধিদের জন্য দেওয়া হয় যাদের ৫০ শতাংশের বেশি প্রতিবন্ধকতা আছে।

ও এক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির পারিবারিক বার্ষিক আয় ১ লক্ষ টাকার কম হতে হবে।

  1. মাভৈ (Mabhoi )

● ইহা একটি স্বাস্থ্য এবং সাধারণ বীমা পলিসি প্রকল্প।

● তথ্য এবং সংস্কৃতি বিভাগের আওতায় স্বীকৃত সাংবাদিকদের জন্য এই প্রকল্প চালু করা হয়েছে।

● এই প্রকল্পের আওতায় সাংবাদিকের পারিবারিক সদস্য যথা স্বামী/স্ত্রী, বাবা-মা, ছোট ভাই/বোন, নির্ভরযোগ্য বিধৰ/ বিবাহ বিচ্ছেদপ্রাপ্ত বোন এবং তার ছেলে মেয়েদের এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে।

● স্বীকৃত সাংবাদিকদের যাদের বয়স ৬৫ বছরের কম তারা এই প্রকল্পের আওতায় পড়বেন।

  1. Safe Drive Save Life

• এই প্রকল্পটি নাগরিকদের মধ্যে নিরাপদে গাড়ী চালানোর অনুভূতি আরও বদ্ধমূল করার জন্য করা হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় নাগরিকদের রাস্তাঘাটে দায়িত্বপূর্ণ ব্যবহার করার জন্য সচেতন হতে বলা হয়েছে।

  1. দুয়ারে সরকার

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের সুবিধা যাতে রাজ্যের প্রত্যেকটি জনগনের কাছে পৌছাতে পারে তার জন্য পশ্চিমবঙ্গের সব জেলায় ক্যাম্প করে সেই সব সুবিধা মানুষের দরগোড়াতে পৌঁছে দেওয়া সরকারের লক্ষ।

  1. লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প

পশ্চিমবঙ্গের তপশিলি জাতি ও উপজাতি সহ সাধারণ মহিলাদের সরকারি আর্থিক সাহায্য দেওয়া এই প্রকল্পের লক্ষ। তপশিলি জাতি ও উপজাতি মহিলাদের 1000 টাকা ও সাধারণ মহিলাদের 500 টাকা প্রতি মাসে টাকা দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় আসতে হলে বয়স হতে হবে 18 থেকে 60 বছরের মধ্যে। লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে হলে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে। লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন পদ্ধতি।

33. পশ্চিমবঙ্গ স্টুডেন্ট ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম 2022 প্রতি বছর ৬ হাজার ছাত্র ছাত্রীদের নি খরচায় ট্রেনিং সাথে বৃত্তি হিসেবে ৫ হাজার টাকা প্রতি মাসে বেতন। দেখুন বিস্তারিত ও আবেদন পদ্ধতি।

Share post