WB D.el.ed admission 2020-21 online application and eligibility criteria full details in Bengali

বন্ধুরা এই মুহূর্তে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ আপডেট আপনাদের সামনে নিয়ে হাজির হয়েছি যেটি হচ্ছে 2020-21 সালের ডি এল এড(D.el.ed) কোর্সে ভর্তির জন্য অনলাইনে এপ্লিকেশন নেয়া শুরু হয়ে গেছে।
এখানে টোটাল শূন্য পদ রয়েছে মানে আসন সংখ্যা রয়েছে 45700 টি। এখন যেকোন ধরনের প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকতার জন্য d.el.ed কোর্স থাকা বাধ্যতামূলক করেছে সরকারের তরফ থেকে। সেহেতু যদি আপনি উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে থাকেন এবং প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য চাকরি করতে ইচ্ছুক থাকেন তাহলে অবশ্যই কিন্তু আপনাকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশের পর ডিপ্লোমা ইন এলিমেন্টারি এডুকেশন অবশ্যই করতে হবে। অন্যবারের মতো কিন্তু এবার অফলাইনে এডমিশন হতে পারবেন না, এবার আপনাদের অনলাইন থেকেই ভর্তি ফরম পূরণ করে অনলাইনে আপনাদের ভর্তি হতে হবে। কেননা চারিদিকে এই কোভিড পরিস্থিতির জন্য একমাত্র অনলাইনেই কিন্তু এডমিশন নিচ্ছে।

20200801 182829 »
Deled Admission online  2020 
WhatsApp Group (Join Now) Join Now
Telegram Group (Join Now) Join Now


এবছরের d.ed কোর্স এডমিশন হওয়ার জন্য যদি আপনি ইচ্ছুক হন তাহলে অবশ্যই এই আর্টিকেল গুলি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত ধৈর্য সহকারে পড়তে থাকুন। আপনি আবেদন করতে পারবেন

  • বাংলা,
  • হিন্দি,
  • নেপালি
  • এবং সাঁওতালি

ভাষাতেও আপনি অনলাইন থেকে আবেদন করতে পারবেন এবং সাথে সাথে উর্দু ভাষা, এসমস্ত ভাষাগুলি তেও আপনি অনলাইন থেকে d.el.ed কোর্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
এ ব্যাপারে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য শুক্রবার জানিয়েছেন, ঝারগ্রাম এর রামগড়ে একটি সরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র আছে যারা সেখানে প্রশিক্ষণ নেবেন তারা সাঁওতালি ভাষায় আবেদন করবেন। আরো বলা হয়েছে

  • সাঁওতালি মাধ্যমে আসনসংখ্যা রয়েছে 50 টি
  • বাংলা মাধ্যমে আসনসংখ্যা 45200 টি
  • হিন্দি মাধ্যমে আসন সংখ্যা 300 টি
  • নেপালি মাধ্যমে আসন সংখ্যা 100 টি
  • উর্দু মাধ্যমে আসন সংখ্যা রয়েছে 50 টি

আরও কিছু বলেছেন যেমন তিনি জানিয়েছেন এবার রাজ্যজুড়ে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে মোট 649 টি কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ হবে। মোট আসন সংখ্যা 45700 এর মধ্যে সরকারি প্রতিষ্ঠান আসন সংখ্যা রয়েছে 3700 এজন্য আপনি যদি অনলাইনে আবেদন করতে চান অবশ্যই কিন্তু আপনাকে অনলাইন কোন চার্জ দিতে হবে না মানে কোন ফ্রী আপনাকে কাটাতে হবে না।
সম্পূর্ণ ফ্রিতে আপনি কিন্তু এই অনলাইন আবেদন করতে পারবেন d.el.ed কোর্স 2021 এর জন্য।

চলুন এবার দেখে নেওয়া যাক আপনি কিভাবে আবেদন করবেন

আবেদন করার জন্য আপনার নিকটবর্তী যেকোনো সিএসসি সেন্টার মানে কমন সার্ভিস সেন্টারে আপনাকে অবশ্যই যেতে হবে এবং এই সমস্ত সেন্টারগুলো থেকে আপনাকে আবেদন করতে হবে।রাজ্যজুড়ে মোট 17 হাজার এরকম কমন সার্ভিস সেন্টার রয়েছে এসমস্ত সেন্টার থেকে আপনাকে আবেদন করতে হবে। সেখানে কোনো এক্সাম ফি মানে আবেদন ফি আপনাকে দিতে হবে না। তারা বিনামূল্যে আপনাদেরকে আবেদন করে দেবে অনলাইন থেকে শুধুমাত্র তারা তাদের যে চার্জ সেটি নেবে আপনাদের কাছ থেকে।
10 আগস্ট থেকে আপনাদের আবেদন শুরু হবে এবং চলবে 31 আগস্ট 2020 পর্যন্ত।যদি আপনারা আবেদন করতে চান তাহলে দেরি না করে খুব শীঘ্রই আবেদন করে ফেলবেন।তাছাড়া আপনার নিজস্ব যদি নিকটবর্তী কোন সিএসসি সেন্টার থেকে থাকে তাহলে আপনি সেন্টারে গিয়ে নিজেও আবেদন করতে পারবেন।তার জন্য আপনাদেরকে দুটি ওয়েবসাইট মনে রাখতে হবে এ দুটি ওয়েবসাইট থেকে আপনারা আবেদন করতে পারবেন তাছাড়া যদি আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা মানে উচ্চমাধ্যমিক ক্লাসে 50% নাম্বার না থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি যদি সিডিউল কাস্ট মানে SC কাস্ট থেকে বিলং করেন বা এসটি থেকে বিলং করেন অথবা ওবিসি ছাত্র-ছাত্রীর জন্য 50% নম্বর লাগবে না ,এখানে যদি আপনার 45% নাম্বার পেয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনি কিন্তু এই কোর্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
তাছাড়া যে সকল ছাত্র-ছাত্রীর ঘরে কম্পিউটার এর সুযোগ সুবিধা নেই তারা রাজ্যের যেকোন প্রান্তে কমন সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করে বিনামূল্যে আবেদনপত্র জমা করতে পারবেন। করোনা আবহওয়ায় এবার পুরো প্রক্রিয়াটাই অনলাইন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।
যখন অনলাইন থেকে আবেদন করবেন এই অনলাইন আবেদন পত্র জমা দেয়ার সময়

  • আপনার মাধ্যমিকের এডমিট কার্ড
  • উচ্চ মাধ্যমিকের মার্কশীট
  • সেল্ফ অ্যাটেস্টেড ফটো
  • কাস্টের শংসাপত্র নথিপত্র

স্ক্যান করে অনলাইনে আপনাকে জমা দিতে হবে। এজন্য আপনি যে ওয়েবসাইটটি ফলো করবেন মানে যেই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি আবেদন করবেন সেটি হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ এর ওয়েবসাইট www.wbbpe.org অথবা www.primaryeducation.org
তো নিয়ম মেনে যখন আপনারা অনলাইন থেকে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ফেলবেন তারপরে আপনাদের একটি মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে। কবে এই মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে সে বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক বন্দোপাধ্যায় জানান 22 সেপ্টেম্বরের মধ্যে মেধাতালিকা প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট কলেজগুলোর কাছে যোগ্যতামান উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীদের নামের তালিকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে।বর্তমান পরিস্থিতিতে আবেদন করার ফি বাবদ কত টাকা জমা দিতে হবে সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।বন্ধুরা দেখতে পাচ্ছেন এখনো পর্যন্ত কোনরকম আবেদন ফি এর কথা কিন্তু বলা হয়নি।সেহেতু আপনারা যখন 10 তারিখে আবেদন করতে যাবেন তখন কিন্তু সেখান থেকে পুরো ডিটেলস দেখতে পাবেন যদি তারা আবেদন ফি সেখান থেকে নেওয়ার কথা বলে সে ক্ষেত্রে আপনাদের কিছু আবেদন ফি কাটিয়ে দিতে হবে।যত তারা বলবে তত টাকা অথবা যদি তারা আবেদনের ব্যাপারে কোন কিছু না বলে তাহলে কোন আবেদন ফি লাগবে না।যেমনটা আপনারা প্রথমেই দেখলেন তেমন অনুযায়ী,কিন্তু আপনাদের অনলাইন থেকে আবেদন কমপ্লিট করে দিতে হবে এবং তারপরে সেপ্টেম্বরে আপনাদের মেধাতালিকা প্রকাশ করার পরে আপনাদের পুরো এডমিশন এর ডিটেলস সম্পূর্ণ সেখান থেকে পেয়ে যাবেন ওই ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই।

আরো দেখুন
৩১৫ টি হোমগার্ড নিয়োগ হবে পশ্চিমবঙ্গে এক ঝলকে দেখেনিন সম্পূন বিস্তারিত জানতে হলে এখানে ক্লিক করুন

Share post

Leave a Comment